Categories
News

“মায়ের গায়ে হাত তোলায় স্ত্রী’কে সাথে সাথেই তালাক দিয়ে ঘার ধাক্কা দিয়ে বের করে দিল মোসাদ্দেক”। ঘটনাটি গঠে২০…

সম্প্রতি, “মায়ের গায়ে হাত তোলায় স্ত্রী’কে সাথে সাথেই তালাক দিয়ে ঘার ধাক্কা দিয়ে বের করে দিল মোসাদ্দেক” শীর্ষক শিরোনামে একটি সংবাদ কিছু ভূইফোঁড় অনলাইন পোর্টালে প্রকাশের মাধ্যমে সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, ক্রিকেটার মোসাদ্দেক কর্তৃক স্ত্রীকে তালাক দেওয়ার ঘটনাটি সাম্প্রতিক সময়ের নয় বরং ঘটনাটি প্রায় চার বছর পূর্বের।

কি-ওয়ার্ড সার্চ পদ্ধতি ব্যবহার করে, সংবাদমাধ্যম দৈনিক যুগান্তরের অনলাইন সংস্করণে ২০১৮ সালের ২৬ আগস্টে “মায়ের গায়ে হাত তোলায় স্ত্রীকে ডিভোর্স দিয়েছি: মোসাদ্দেক” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত খুঁজে পাওয়া যায়।

পাশাপাশি, ঐ সময়ে মোসাদ্দেকের স্ত্রীকে তালাক দেয়ার ঘটনা নিয়ে একাধিক সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়, দেখুন

মূলত, দৈনিক যুগান্তরের ২০১৮ সালে প্রকাশিত প্রতিবেদনের লেখাটিকে হুবহু কপি করে সাম্প্রতিক সময়ে কোনো তারিখ উল্লেখ ছাড়াই বেনামী অনলাইন পোর্টালে প্রকাশের মাধ্যমে পুনরায় প্রচার করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, সাংসারিক বিভিন্ন দ্বন্দ এবং মায়ের গায়ে হাত তোলার অভিযোগ এনে ২০১৮ সালের ১৬ আগস্টে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের খেলোয়াড় মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত তার স্ত্রী সামিয়া শারমিনকে তালাক দেন। পরবর্তীতে, সামিয়া শারমিন মোসাদ্দেকের বিরুদ্ধে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের অভিযোগে মামলা করেন।

প্রসঙ্গত, ২০২০ সালের ১০ জুলাইয়ে ঘরোয়াভাবে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। তার দ্বিতীয় স্ত্রীর নাম উম্মে তামান্না।

অর্থাৎ, ২০১৮ সালের একটি ঘটনার সংবাদকে হুবহু কপি করে প্রেক্ষাপট এবং পূর্বের তারিখ উল্লেখ ব্যতীত অপ্রাসঙ্গিকভাবে সম্প্রতি নতুন করে সামাজিক মাধ্যমে প্রচার করা হচ্ছে; যা বিভ্রান্তিকর।

Categories
News

আপন বোনকে প্রেগন্যান্ট করে বিয়ে করলো মায়ের পেটের ভাই!-ময়মনসিংহে

চতুর্থ শ্রেণি পড়ুয়া জান্নাত ও পাঁচ বছর বয়সী এবাদত বাবা-মা হারানোর শোক এখনও পুরোপুরি বুঝে উঠতে পারছে না। সবাই বলছে তাদের বাবা-মা ঘুমিয়ে আছে বাড়ির পাশের কবরে। এদিকে মা-বাবা-বোন নিহতের সময় সড়কে জন্ম নেওয়া শিশু হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। রোববার দুপুরে হাসপাতালে সেই বোনকে দেখতে যায় জান্নাত ও এবাদত। ছোট্ট বোনকে দেখে খুশি তারা। দুপুর ২টার দিকে ময়মনসিংহ নগরীর চরপাড়া মোড়ের লাবিব প্রাইভেট হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছোট্ট বোনের সঙ্গে দেখা হয় তাদের। গত শনিবার ট্রাকচাপায় বাবা-মা ও বোন নিহত হওয়ার সময় মায়ের পেট ফেটে জন্ম নেয় কন্যাশিশুটি। শিশুটির আপন বলতে এখন তার বড় দুই ভাইবোন জান্নাত ও এবাদত। মায়ের এক ফোঁটা দুধও মুখে যায়নি, ক্ষণে ক্ষণে কেঁদে উঠছে শিশুটি শিশু জান্নাত ত্রিশালের মঠবাড়ি ইউনিয়নের রায়মনি গ্রামে ব্র্যাক পরিচালিত একটি বিদ্যালয়ে চতুর্থ শ্রেণিতে পড়ে। জান্নাত জানায়, সে তার বোনকে লালনপালন করবে। তার কাছে রাখবে। কারও কাছে যেতে দেবে না। হাসপাতালে ছোট বোনের কাছে যাওয়ার পর খুশি শিশু এবাদতও। বাবা-মা মারা গেছে সেটি বুঝেনি এখনও সে। বাবা-কখন বাড়ি ফিরবে এমন বায়না ধরে দাদা মোস্তাফিজুর রহমান বাবলুর কাছে। লাবিব হাসপাতালের নার্স শরিফা আক্তার সমকালকে বলেন, ছোট্ট বোনের পাশে ভাই-বোন কিছু সময় ছিলো। বোনকে পেয়ে তারা খুব খুশি। কোলে নিয়ে আদর করে, ছবিও তোলে। মোস্তাফিজুর রহমান বাবলু বলেন, বাবা-মা মারা গেছে এটি জান্নাত বুঝলেও এবাদত বুঝতে পারছে না। তাকে অনেক বুঝিয়ে শান্ত রাখা হচ্ছে। ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের ত্রিশালের কোর্ট ভবন এলাকায় গত শনিবার জাহাঙ্গীর আলম, অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী রত্না আক্তার ও তাদের ছয় বছর বয়সী মেয়ে সানজিদা আক্তার ট্রাকচাপায় প্রাণ হারান। এই দুর্ঘটনার সময় গর্ভবতী রত্না আক্তারের পেট ফেটে জন্ম নেয় তার সন্তান। হাসপাতালে এখন চিকিৎসা চলছে তার।

Categories
News

শিক্ষিকার লাশের ফরেসিক রিপোর্ট শেষে ডক্টর যা বললেন, মামুনের জামিন হবে কি?

নাটোরে কলেজ শিক্ষিকা খায়রুন নাহারের (৪২) লাশ উদ্ধারের ঘটনায় অপমৃত্যু মামলা, ৫৪ ধারায় স্বামী কলেজ ছাত্র মামুন (২২) গ্রেপ্তার,,,,,

নিচের ছবির মানুষ দুটো কিছুদিন আগেই প্রেমের বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে বিয়ের সিদ্ধান্ত নেন! বয়সে তারা প্রায় বিশ বছরের ব্যবধান! অসম প্রেম বা বিয়ে আমরা অনেক দেখি কিন্তু এর সুখের পরিসমাপ্তি ঘটে খুবই কম! এখানে বায়োলজিক্যাল বিষয়টা একটা মূখ্য ভূমিকা রাখে!
নারী পুরষের চেয়ে বয়সে অনেক ছোট এটা যেমন সমাজ মেনে নেয় বা সেই সংসার টিকে থাকার নিশ্চয়তা অনেক দেখা যায় তেমনি নারীর চেয়ে পুরুষ বয়সে ছোট এমন সংসার বা বন্ধন টিকে যাওয়ার গল্প খুব কম দেখা যায় ! এটা আমি মনে করি সৃষ্টিগতভাবেই নারী ও পুরুষের স্বক্ষমতা ও গ্রহনের তারমত্য’র কারন! এবং প্রত্যেকটা যুগের বর্তমান সমাজ ব্যবস্থাও অনেকাংশে এর সাথে জড়িত!

আমরা দেখেছি ১৬ বছরের একটা কিশোরী ৪০ বছরের পুরুষের সাথে বিয়ে হয়ে দিব্যি তার কৈশরী মনোভাব ভুলে নিমগ্ন হয়ে যায় একজন পরিপূর্ণ নারী ও মা হওয়াতে! কিন্তু ক’জন পুরুষ দেখেছি আমরা যারা ১৬ বছরের কিশোর মনোভাব পাল্টে ৪০ বছরের নারীর সঙ্গী হয়ে নিজেকে বদলে ফেলতে..?? না এমনটা খুব কম! নেহাৎ কম! এই কমের পিছনে সৃষ্টিকর্তার দেওয়া নারী ও পুরুষের মানসিক শক্তি ও ক্ষমতা ভূমিকা রাখে!
নারী ও পুরুষের সমান ক্ষমতা ও অধিকার বলতে আমরা যা-ই বুঝিনা কেন আমাদের মানতে হয় আমরা ভিন্ন ক্ষমতা ও অবয়ব নিয়েই সৃষ্টি হয়েছি!
আর এসব বাস্তবতা নিয়ে যারা ভাবেন না বা পর্যালোচনা করেন না তারাই এমন সব অপ্রীতিকর বা বিপদের সম্মুখীন হন !

প্রকৃতি সবসময়ই রিপ্লাই দিতে পছন্দ করে! সেটা হতে পারে তৎক্ষনাৎ হতে পারে বহুদিন পর! এমন অনেক দেখেছি অনেক মানুষ গোপনে অপরাধ করে, কারো ক্ষতি করে, খারাপ কাজে লিপ্ত থাকে! তিনি হয়তো ভাবেন আমার অপরাধ বা কর্মকাণ্ড কেউ হয়তো দেখেনি! হয়তো কিছুদিন তিনি ভালোও থাকেন! কিন্তু প্রকৃতি ভুলে যায় না মানুষের কর্মকান্ড! সে তার প্রতিউত্তর দিবেই! সেটা হতে পারে সেইম পন্থায়, হতে পারে ভিন্ন পন্থায়! ঠিক তেমনি আপনি একটা ভালো কাজ করবেন তারও রিপ্লাই পাবেন না তা নয় ; ভালোকাজেরও প্রতিউত্তর আছে সেটাও প্রকৃতি ভিন্নভাবে দেয়! এবং দিবেই!

সবচেয়ে বড় কথা সময়ের সাথে সাথে যারা নিজেকে পরিবর্তন করতে পারে না তারা কি আসলে কি সঠিক মানুষ..?? আমি মনে করি না!
একটা ১৬ বছরের কিশোরী তার স্কুলে যাওয়ার পথে পাশকাটিয়ে যাওয়া যুবককে দেখে যেমন মিষ্টি হাসি দিবে, বিকেল বেলা প্রতিবেশি দূরের ছাদের ছেলেকে দেখে যে ইশারায় কথা বলবে সেই কিশোরী যখন চল্লিশোর্ধ্ব মা হবে তখন তিনি তার ১৬ বছরের কন্যাকে বলবে, পথে কোন ছেলেদের দিকে তাকাবে না! স্কুল ছুটির পর সোজা বাড়ি আসবে! ঠিক এটাই হলো পরিবর্তন! এটাই হলো বুদ্ধিমত্তার পরিচয়! এটাই হলো বদলে যাওয়া! এটাই বাস্তবতা !!

এই বাস্তবতার সাথে যারা নিজেকে পরিবর্তন করতে পারে না তারাই আপত্তিকর ও অপ্রীতিকর ঘটনার সৃষ্টি করে!
ছবির এই শিক্ষিকা আত্মহত্যা করেছেন না তাকে হত্যা করা হয়েছে তা এখনো প্রমানিত হয়নি! তবে সেটা যা-ই ঘটুক না কেন এই শিক্ষিকার জীবনে বিচক্ষণতার ও সঠিক সিদ্ধান্তের ঘাটতি ছিল বলেই আমি মনে করি! এই ছেলেটার অবয়ব বা তার কথাবার্তা দেখে ও শুনে কি করে মধ্যবয়সী একজন নারী যিনি কিনা পেশায় একজন শিক্ষিকা তিনি কি করে এমন সিদ্ধান্ত নেন!! আবেগ দিয়ে যেমন জীবন চলে না তেমনি আবেগ ছাড়াও জীবন চলে না! শুধু জীবনে সঠিক পথে চলতে থাকতে হয় রুচী ও নিয়ন্ত্রণবোধ!! রুচীর পরিচয় যারা দিতে যানেন না তারা জীবনে ঠকবেই এবং অসম্মানিত হবেই! এটা প্রমানিত !
তাই জীবনকে স্বাভাবিভাবে চলতে রাখতে হয় নিজের উপর আস্থা যা হয়তো ঐ শিক্ষিকা রাখতে পারেন নি! তাই হয়তো নানান প্রশ্নবিদ্ধ প্রশ্নের উত্তর না পেয়ে তিনি জীবন এভাবে শেষ করলেন বা শেষ করা হয়েছে…! আর এটা যদি আত্মহত্যা না হয়ে হত্যা হয় তাহলে এই হত্যাকাণ্ডের বিচার জরুরী॥
সমাজ সংস্কারের জন্য হলেও জরুরী॥

Categories
News

প্রভার ৩ মিনিটের ভিডিও ভাইরাল,,লিংক ভিতরে দেওয়া আছে..!!(ভিডিও ভিতরে দেওয়া আছে)

আজব এই পৃথিবীতে প্রতিদিন কত অবাক কাণ্ডই না ঘটছে! তারই একটি একজন মানুষ তার নিজেকে বিয়ে করা। গত ৯ জুন এমনই এক কাণ্ড ঘটান ভারতের গুজরাট প্রদেশের ২৪ বছর বয়সী তরুণী শামা বিন্দু। রীতিমতো আয়োজন করে তিনি নিজেকে বিয়ে করেন সেদিন। তা নিয়ে হৈচৈ আর সমালোচনা কম হয়নি।

দুই মাস না যেতে এবার একই আজব ঘটনা ঘটালেন ভারতীয় টিভি অভিনেত্রী কনিষ্কা সোনি। সম্প্রতি নিজেকে সঙ্গে বিয়ে করেছেন তিনিও। সোশ্যাল মিডিয়ায় মঙ্গলসূত্র ও সিঁদুর পরে ছবি পোস্ট করে এই খবর শেয়ার করেন কণিষ্কা। অভিনেত্রীর দাবি, এর পরই তার প্রোফাইল হ্যাক হয়ে যায়।

তবে কণিষ্কার মঙ্গলসূত্র ও সিঁদুর পরা ছবি দেখে অনেকেই ভেবেছিলেন, হয়তো শুটিং সেট থেকে ছবি পোস্ট করেছেন তিনি। কিন্তু পরে নিজের সঙ্গে নিজের বিয়ের কথা ঘোষণা করতেই হতবাক হয়ে যান সবাই।

কণিষ্কা ইনস্টাগ্রামে লেখেন, ‘নিজের সঙ্গেই বিয়ে করলাম। কারণ আমি নিজেই নিজের সব স্বপ্ন পূরণ করি। আমি নিজেকেই সবচেয়ে বেশি ভালোবাসি। আমার জীবনে কোনো পুরুষের দরকার নেই। আমি একাই আনন্দে থাকি। আমার গিটার নিয়ে থাকি। আমি দেবী, শক্তিশালী, শিব ও শক্তি দুইই রয়েছে আমার মধ্যে। ধন্যবাদ।’

Categories
News

বৌ’দির খো’লামেলা গো’সলের ভি’ডিও নে’ট দু’নিয়ায় ভা’ইরাল (ভিডিও)

ইনকিলাব ডেস্ক : স্বায়ত্তশাসিত জিনজিয়াংয়ের পশ্চিমাঞ্চলীয় মরুভূমিতে চীনের নৌসেনারা প্রশিক্ষণ নিচ্ছে। সমুদ্র ছেড়ে মরুভূমিতে কেন নৌসেনারা প্রশিক্ষণ নিচ্ছেনÑ এমন প্রশ্নই এখন বোদ্ধামহলে ঘুরপাক খাচ্ছে। প্রসঙ্গত, চীনে সন্ত্রাসীবিরোধী নতুন আইন পাস হওয়ার কয়েকদিন পরই দেশটির সেনাবাহিনীকে প্রথমবারের মতো বিদেশি বাহিনীর সঙ্গে সন্ত্রাসবিরোধী অভিযানে অংশ নেওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। আর অনুমতি পাওয়ার পরই সমুদ্র থেকে দুই হাজার কিলোমিটার দূরে স্বায়ত্তশাসিত জিনজিয়াংয়ের পশ্চিমাঞ্চলীয় মরুভূমিতে নৌসেনারা প্রশিক্ষণ গ্রহণে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে। বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, ধারাবাহিকভাবে এই মহড়া ইঙ্গিত দিচ্ছে যে, ঐতিহ্যগতভাবে নৌ ও স্থলভূমিতে অভিযান চালানোয় প্রশিক্ষিত এই নৌবাহিনীকে চীনের মূল ভূখ- থেকে দূরবর্তী ভূমিতে একটি অভিজাত বাহিনী হিসেবে মোতায়েন করা হতে পারে।
খবরে বলা হয়েছে, গত নভেম্বরে ইসলামিক স্টেট (আইএস) জঙ্গিদের হাতে একজন চীনা জিম্মি হত্যা এবং মালির হোটেলে হামলাকারী আইএস জিহাদিদের হামলায় তিন কর্মকর্তার নিহত হওয়ার ঘটনার পর চীন ওই সন্ত্রাসবিরোধী নতুন আইন করেছে। সারা বিশ্বে বাণিজ্যিক ও কূটনৈতিক স্থাপনার নিরাপত্তায় গত মাসের শেষের দিকে চীন নতুন এই আইনটি পাস করে। নৌবাহিনী দক্ষিণ সাগর নৌবহরের উপপ্রধান লি জিয়াওয়ান বলেছেন, শীতকালীন এই প্রশিক্ষণ অজানা অঞ্চলে দূরপাল্লার হামলা চালাতে নৌসেনাদের সক্ষমতা আরো উন্নত করবে। চলতি মাসের শুরুতে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়, মহড়ার সময় নৌসেনারা চীনের দক্ষিণাঞ্চলীয় প্রদেশ গোয়াংডং প্রদেশ থেকে বিমান, ট্রাক ও রেলযোগে পাঁচ হাজার ৯০০ কিলোমিটার পথ ভ্রমণ করেছেন। অভিযান পরিচালনার সময় নৌবাহিনী আগে কখনো এত দীর্ঘতম পথ পাড়ি দেয়নি। রয়টার্স, টাইমস অব ইন্ডিয়া।

Categories
News

#ব্রেকিং নিউজ ভারতের বিখ্যাত অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তী নেই তিনি না ফেরার দেশে চলে গেছেন!

ভারতের বিখ্যাত অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তী নেই তিনি না ফেরার দেশে চলে গেছেন”

পেটের পীড়া থেকে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বাংলা সিনেমা ও বলিউডের কিংবদন্তি অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তী। উত্তরাখণ্ড রাজ্যের মুসৌরিতে বিবেক অগ্নিহোত্রীর পরিচালিত ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’ সিনেমার শুটিং সেটে এই অভিনেতা অসুস্থ হয়েছেন। পরিচালক বিবেক জানিয়েছেন, মুসৌরিতে একটি বড় দৃশ্যের শুট চলছিল। কাজে যাতে কোনও ব্যাঘাত না ঘটে তার জন্য অসুস্থ অবস্থাতেই শুটিং চালিয়ে যাচ্ছিলেন মিঠুন।
বিবেকের কথায়, ‘যন্ত্রণায় সোজা হয়ে দাঁড়াতে পারছিলেন না প্রবীণ অভিনেতা। তবুও তিনি একটার পর একটা দৃশ্যে নিখুঁত শট দিচ্ছিলেন। একবারের জন্যও বোঝা যাচ্ছিল না, তিনি অসুস্থ। উল্টে সমানে জানতে চাইছিলেন, কাজে কোনও সমস্যা বা খামতি থাকছে না তো?’
পরিচালকের অকপট স্বীকারোক্তি, এই প্রজন্মের কোনও অভিনেতার মধ্যে কাজের প্রতি এত নিষ্ঠা, ভালবাসা দেখেননি তিনি। মিঠুন চক্রবর্তীর মতো অভিনেতা যে কোনও সিনেমার সম্পদ।

২০১২-য় বিবেক অগ্নিহোত্রী পরিচালিত ‘তাসখন্দ ফাইলস’ হিট হয়েছিল। সেই সাফল্যেই অনুপ্রাণিত পরিচালক ঠিক করেন, কাশ্মীরী হিন্দুদের দুর্দশার কথা তুলে ধরবেন তাঁর আগামী ছবি ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’-এ। ছবির মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করছেন অনুপম খের।

Categories
News

#ব্রেকিং নিউজ পুলিশ ও ছাত্রলীগের সংঘর্ষ নিহত ২০জন আহত ৩৫ জন!(দেখুন ভিডিও)

বরগুনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এস এম তারেক রহমান বলেন, ‘জেলা শিল্পকলা একাডেমির সামনে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। পুলিশ গিয়ে তাদের ছত্রভঙ্গ করে। পরে একটি গ্রুপ একাডেমির দ্বিতীয় তলা থেকে পুলিশের গাড়িতে ইট ছুড়ে মারে।’
বরগুনায় জাতীয় শোক দিবসের অনুষ্ঠানে সংসদ সদস্যের সামনেই ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের পর সরকার সমর্থক ছাত্র সংগঠনের নেতা-কর্মীদেরকে বেধরক পিটিয়েছে পুলিশ।

বরগুনা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনের সামনে সোমবার দুপুর ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

এ সময় সেখানে বরগুনা-১ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু উপস্থিত ছিলেন। বিক্ষুব্ধ ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা পরে কয়েকটি মোটরসাইকেল ও পুলিশের গাড়ি ভাঙচুর করেন।

20220810092534.gif
নিউজবাংলাকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন বরগুনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলী আহম্মেদ।

তিনি জানান, দুপুর ১২টার দিকে বঙ্গবন্ধুর ৪৭তম শাহাদাতবার্ষিকী উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি কমপ্লেক্সে তার প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে ফেরার সময় শিল্পকলা একাডেমির সামনে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের ওপর পদবঞ্চিত কয়েকজন হামলা চালায়। এ সময় দুই গ্রুপের নেতাকর্মীরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। পরে পুলিশ লাঠিচার্জ করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

এ সময় তারা কয়েকটি মোটরসাইকেলসহ অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের গাড়ি ভাঙচুর করে। পরে শিল্পকলা ও লঞ্চঘাট এলাকায় অভিযান চালিয়ে দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বর্তমানে শহরের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টগুলোতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে বলেও জানান ওই পুলিশ কর্মকর্তা।

এ ঘটনায় জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল কবির রেজা জানান, বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শিল্পকলায় প্রবেশের সময় হামলাকারীরা ছাদ থেকে তাদের ওপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকে। এ কারণে পুলিশের গাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে পুলিশ লাঠিচার্জ শুরু করে।

রেজাউল কবির বলেন, ‘আমরা শান্তিপূর্ণভাবে কর্মসূচি পালন করছিলাম। এ সময় ছাত্রলীগ পরিচয়ে কয়েক সন্ত্রাসী আমাদের ওপর হামলার চেষ্টা করে। পুলিশ তাদের লাঠিপেটা করে ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

‘নতুন কমিটি ঘোষণার পর ওই সন্ত্রাসীরা একাধিকবার আমাদের ওপর হামলার চেষ্টা করেছে এবং শহরে আতঙ্ক ছড়িয়েছে।’

পুলিশের বেধড়ক পিটুনি খেল ছাত্রলীগ
তবে সভাপতি পদবঞ্চিত জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি সবুজ মোল্লা মোবাইল ফোনে বলেন, ‘এ ঘটনায় আমি বা আমার সমর্থক কোনো ছাত্রলীগ কর্মী জড়িত না। অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গিয়েছিলাম, কিন্তু হঠাৎ পুলিশ লাঠিচার্জ শুরু করে। কী ঘটেছে জানার চেষ্টা করছি।’

নদীবন্দর থেকে দেশীয় অস্ত্র উদ্ধারের বিষয়ে জানতে চাইলে ছাত্রলীগের এ নেতা বলেন, ‘ছাত্রলীগের কোনো নেতাকর্মী নদীবন্দরে যায়নি। উদ্ধারকৃত অস্ত্র ছাত্রলীগের নয়।’

এ বিষয়ে জানতে এমপি ধীরেন্দ্র দেবনাথ শমভুর সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

Categories
News

দুই বৌদির গোসলের ভিডিও করল দেবর গোপনে!(দেখুন ভিডিও)

‘ছেলে-মেয়ে আর বুলবুলকে নিয়ে খুব ভালো ছিলাম আমি। বুলবুল খুব ঠান্ডা প্রকৃতির মানুষ ছিল। বুলবুল তো ফ্রিতেই অনেক মানুষকে চিকিৎসা দিত। ওরা বুলবুলকে মারল কেন! ওরা আমার সন্তানদের বাবাহারা করল কেন! ওরা সারা দিন বাবার অপেক্ষায় থাকে। এখন কী বুঝ দিব আমি সন্তানদের!’ অশ্রুরুদ্ধ কণ্ঠে কথা বলছিলেন ডা. বুলবুলের স্ত্রী শাম্মী।

কিছুক্ষণ পরপর ডা. বুলবুল ফোন করে ছেলে-মেয়ের সঙ্গে কথা বলতেন। ভিডিও কলে বাবাকে দেখত ছোট্ট সামী। আর তাতে অভ্যস্ত হয়ে গেছে সে। এখন ফোনে রিং হলেই বাবা বাবা বলে ডেকে ফোন ধরে। কানে ফোন ধরে, কিন্তু সামীর কানে আর বাবার কথা বাজে না। একটু পরে ফোন ফেলে দিয়ে কান্না করে। দেড় বছর বয়সী সামীকে কী বুঝ দেবেন ভাষা নেই মা শাম্মীর ।

মেয়ে আয়ন আনমনা হয়ে বসে থাকে সারা দিন। কারোর সাথে কোনো কথা বলে না, খাওয়া-দাওয়াও করছে না। মেয়ে চোখের পানিতে বাবার ছবি এঁকে যাচ্ছে। কিছুক্ষণ পরপর কাঁদছে আর বাবার ছবি আঁকছে। এটাই তার বাবা! ছয় বছরের মেয়ের কাছে ড্রইংয়ের এই ছবিতেই বেঁচে আছেন ডা. বুলবুল।

বর্তমানে এই হলো ডা. বুলবুলের পরিবারের চিত্র। চিকিৎসক বুলবুল আহমেদ সব ব্যস্ততার মধ্যেও সন্তানদের ভুলতেন না। চেম্বার থেকে একটু পরপর স্ত্রী শাম্মীকে ফোন করে খোঁজ নিতেন বাচ্চাদের। কথা বলতেন তাদের সঙ্গে। আজ তিনি তাদের কাছ থেকে চিরকালের জন্য হারিয়ে গেছেন।

ডাক্তার বুলবুলের মেয়ে আয়নের আকা একটি ছবিতে দেখা যাচ্ছে বাবা-মা আর তারা দুই ভাই-বোন হাত ধরে দাঁড়িয়ে আছে। বাবার হাত ধরে আছে আয়ন। আর ছবির ওপরে লেখা- ‘প্রিয় বাবা, তুমি কোথায়?’ ‘আব্বু, তোমাকে ভালোবাসি, আব্বু তোমাকে মিস করি!’

শাম্মী বলেন, ‘বাচ্চাদের লেখাপড়া শেখানো ও ভালো মানুষ করে গড়ে তুলতে এক বুক স্বপ্ন নিয়ে ঢাকায় এসেছিলাম। কিন্তু আজ খালি হাতে গ্রামে চলে আসতে হলো।’

মগবাজারের একটি বেসরকারি মেডিকেল কলেজে দন্ত চিকিৎসা বিষয়ে পড়াশোনা শেষে মগবাজার এলাকাতেই রংপুর ডেন্টাল নামে একটি চেম্বার খুলে মানুষকে চিকিৎসাসেবা দিচ্ছিলেন ডা. বুলবুল। দরিদ্র ও নিম্নবিত্ত রোগীদের বিনামূল্যে চিকিৎসা দিতেন বলে ‘গরীবের ডাক্তার’হিসেবে তার পরিচিতি তৈরি হয়।

রংপুর শহরের কোতোয়ালি ভগিবালাপাড়া গ্রামের আব্দুস সামাদ ও বুলবুলি সামাদ দম্পতির দুই ছেলে ও এক মেয়ের মধ্যে সবার বড় ছিলেন বুলবুল। ২০০৮ সালে দিনাজপুরের মেয়ে শাম্মীকে বিয়ে করেন তিনি। তাদের কোল জুড়ে আসে মেয়ে আয়ন ও ছেলে সামী। পরিবার নিয়ে পশ্চিম শেওড়াপাড়া আনন্দবাজার এলাকায় একটি ভাড়া বাসায় থাকতেন ডা. বুলবুল।

Categories
News

মেশিন নিয়ে এসেছি বাড়ীতে, আর বিয়ে করার ইচ্ছা নাই : শ্রাবন্তী

স’ময়ের সেরা আলোচিত জনপ্রিয় নায়িকা শ্রাবন্তী। আলোচনা- সমা’লোচনা নিয়েই তার ক্যারিয়ার। বরাবরই তিনি আলো’চনায় থাকেন। ফের খবরের শি’রোনাম হলেন এই অভিনেত্রী। নতুন খবর হচ্ছে, পা’হাড়ের কোলে দাঁড়িয়ে একটি ছবি পোস্ট করেছেন তিনি। ক্যাপশনে লেখা, ‘আমা’দের সকলেরই নিজস্ব টাইম মেশিন রয়েছে’।আচমকা টাইম মেশিনের কথা অভি’নে’ত্রীর মুখে শুনে কৌতুহল প্রকাশ করেছেন তার ভার্চুয়াল অনু’রাগীরা। recommended by RTBS OFFER কিভাবে আমি মাত্র 2 মাসে 85 কেজি থেকে 54 কেজি হয়ে গেলাম আরও জানুন ছবিতে কালো টপের সঙ্গে গাঢ় নীল রঙের হট প্যান্ট পরে বেশ হাসিখুশি মেজাজে দেখা গেছে নায়িকাকে। অ’ভিনেত্রী কিন্তু রয়েছেন তার স্ব-মেজাজে। সময়ের সেরা আ’লোচিত জনপ্রিয় নায়িকা শ্রাবন্তী। আলোচনা- সমা’লোচনা নিয়েই তার ক্যারিয়ার। বরাবরই তিনি আলোচনায় থাকেন। ফের খবরের শিরোনাম হলেন এই অভিনে’ত্রী। নতুন খবর হচ্ছে, পাহাড়ের কোলে দাঁড়িয়ে একটি ছবি পোস্ট করে’ছেন তিনি। ক্যাপশনে লেখা, ‘আমাদের সক’লেরই নিজস্ব টাইম মেশিন রয়েছে’। recommended by RTBS OFFER কিভাবে আমি মাত্র 2 মাসে 85 কেজি থেকে 54 কেজি হয়ে গেলাম আরও জানুন আচমকা টাইম মেশিনের কথা অভিনে’ত্রীর মুখে শুনে কৌতুহল প্রকাশ করেছেন তার ভার্চু’য়াল অনুরাগীরা। ছবিতে কালো টপের সঙ্গে গাঢ় নীল র’ঙের হট প্যান্ট পরে বেশ হাসিখুশি মে’জাজে দেখা গেছে নায়িকাকে। অভি’নেত্রী কিন্তু রয়েছেন তার স্ব-মেজাজে।

Categories
News

রিমান্ডের শেষে হত্যার সাথে জরিত ৪ জনের নাম প্রকাশ করলেন মামুন, বিস্তারিত..!!

নাটোরে কলেজছাত্রকে (২২) বিয়ে করা কলেজ শিক্ষিকা খাইরুন নাহারের (৪০) মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। রোববার সকালে শহরের বলারীপাড়া এলাকার একটি বাড়ির চতুর্থ তলার ফ্ল্যাট থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। খাইরুন ওই ফ্ল্যাটে স্বামী মামুন হোসেনকে নিয়ে ভাড়া থাকতেন।
ঘটনার পর পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মামুনকে আটক করেছে।

জিজ্ঞাসাবাদের পর পুলিশ সুপার (এসপি) রিটন কুমার সাহা জানান, টাকা-পয়সা নিয়ে গত শনিবার রাতে মামুনের সঙ্গে খাইরুনের ঝগড়া হয়। এরপর রাত সোয়া ২টার দিকে মামুন বাসা থেকে বাইরে চলে যান। তখন খাইরুন তাকে ফিরে আসার অনুরোধ করলেও তিনি ফেরেননি। এরপর ভোর ৬টার দিকে বাসায় ফিরে দেখেন, ওড়না দিয়ে খাইরুন ফাঁস লাগানো অবস্থায় ফ্যানের সঙ্গে ঝুলছেন। তখন বঁটি না পেয়ে গ্যাস লাইটার দিয়ে ওড়না পুড়িয়ে খাইরুনের মরদেহ নিচে নামান মামুন।

এসপি জানান, খাইরুনের টাকা-পয়সা মামুন ভোগ করলেও আগের ঘরের ছেলেকে টাকা দিতে চাইছিলেন না। এ নিয়ে কিছুদিন ধরে তাদের মধ্যে পারিবারিক কলহ চলছিল।

এসপি রিটন কুমার সাহা জানান, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নাটোর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। তারাও প্রাথমিকভাবে ধারণা করছেন, কলেজ শিক্ষিকা আত্মহত্যা করেছেন। তবে এ ঘটনায় তার স্বামী মামুনের বিরুদ্ধে প্ররোচনার অভিযোগ আনা হবে।

এসপি আরো জানান, তারা ওই দম্পতির ভাড়া বাসার সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করেছেন। তাতে রাত ২টা ১৭ মিনিটের দিকে মামুনকে বাসার বাইরে যেতে দেখা গেছে। আরেকটি সিসিটিভি ফুটেজ পাওয়া গেছে ওই বাসার দেড় কিলোমিটার দূরের জেলগেটের। তাতে কারারক্ষীদের সঙ্গে কথা বলতে দেখা গেছে মামুনকে।

তবে ওই কলেজ শিক্ষিকার আত্মীয়দের অভিযোগ, খায়রুনকে হত্যা করা হয়েছে। খাইরুনের চাচাতো ভাই ইউনুস আলী অভিযোগ করেন, এরই মধ্যে মামুন তার স্ত্রীর কাছ থেকে ১০ থেকে ১২ লাখ টাকা নিয়ে বাড়ি আধাপাকা করেছেন। ওই টাকা একটি এনজিও থেকে ঋণ নিয়েছেন খাইরুন।

খাইরুনের খালাতো ভাই নাইম অভিযোগ করেন, বিয়ের পরে খাইরুন টাকা দিয়ে মামুনকে দুটি মোটরসাইকেল কিনে দিয়েছিলেন। মামুন এখন আবার নতুন মডেলের মোটরসাইকেল কিনে দেওয়ার জন্য চাপ দিচ্ছিলেন। এসব কারণে পারিবারিক বিরোধের জের ধরে

তাকে হত্যা করা হতে পারে।

মামুন দাবি করেছেন, রাত ২টার দিকে খাইরুনের শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে তিনি ওষুধ আনতে বাজারে গিয়েছিলেন। ফিরে এসে দেখেন দরজা খোলা। পরে শোবার

কক্ষে খাইরুনকে ফাঁস লাগানো অবস্থায় দেখতে পান।

ওই বাসার নৈশ প্রহরী নিজাম উদ্দিন জানান, রাত ২টার দিকে মামুন নিচে নেমে এসে জানান তিনি হাসপাতালে যাবেন। তখন তিনি গেট খুলে দেন। ভোরের দিকে ফিরে জানান, তার স্ত্রী আত্মহত্যার চেষ্টা করছেন। এরপর ওপরে গিয়ে শোয়ানো মৃতদেহ দেখতে পান নিজাম। পরে পুলিশকে জানানো হয়।

জানা গেছে, প্রথম স্বামীর সঙ্গে খাইরুনের বিচ্ছেদ হওয়ার পর তিনি হতাশাগ্রস্ত ছিলেন। এর মধ্যে ফেসবুকে পরিচয়ের সূত্র ধরে কলেজছাত্র মামুনের সঙ্গে তার সম্পর্ক গড়ে ওঠে। গত বছরের ১২ ডিসেম্বর তারা বিয়ে করেন। সম্প্রতি বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হয়।।